অপারেশন গর্ডিয়ান নট, নরসিংদীতে ২ জঙ্গি নিহত

বিডিমেট্রোনিউজ ডেস্ক ॥ নরসিংদীর মাধবদীতে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের পর নারীসহ দু’জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশের দাবি নিহতরা নব্য জেএমবি’র সদস্য। উপজেলার শেখেরচর ভগীরথপুর চেয়ারম্যান মার্কেট এলাকায় এবং মাধবদী ছোট গদাইরচর গাংপাড় এলাকায় পৃথক দু’টি আস্তানায় অভিযান চালায় পুলিশ। শেখেরচরের জঙ্গি আস্তানায় গতকাল অভিযান শেষ হলেও গাংপাড়ের আস্তানায় আজ অভিযান চলবে।

‘অপারেশন গর্ডিয়ান নট’- নামে এ অভিযানের পর নারীসহ দুই জঙ্গির লাশ উদ্ধার করা হয়। সেখান থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। জঙ্গিরা সেখানে চারটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে।

অভিযান শেষে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল (সিটিটি) ইউনিটের প্রধান ডিআইজি মনিরুল ইসলাম জানান, অভিযানে নিহতদের মধ্যে একজন পুরুষ ও একজন নারী।

নরসিংদীর মাধবদীতে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের পর নারীসহ দু’জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশের দাবি নিহতরা নব্য জেএমবি’র সদস্য। উপজেলার শেখেরচর ভগীরথপুর চেয়ারম্যান মার্কেট এলাকায় এবং মাধবদী ছোট গদাইরচর গাংপাড় এলাকায় পৃথক দু’টি আস্তানায় অভিযান চালায় পুলিশ। শেখেরচরের জঙ্গি আস্তানায় গতকাল অভিযান শেষ হলেও গাংপাড়ের আস্তানায় আজ অভিযান চলবে।

‘অপারেশন গর্ডিয়ান নট’- নামে এ অভিযানের পর নারীসহ দুই জঙ্গির লাশ উদ্ধার করা হয়। সেখান থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। জঙ্গিরা সেখানে চারটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে।

অভিযান শেষে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল (সিটিটি) ইউনিটের প্রধান ডিআইজি মনিরুল ইসলাম জানান, অভিযানে নিহতদের মধ্যে একজন পুরুষ ও একজন নারী।

স্থানীয়দের বক্তব্য: দুপুর ১২টার দিকে শেখেরচর ভগীরথপুর চেয়ারম্যান মার্কেট এলাকার বাসিন্দা বাদল মিয়া ওরফে বাদল বাবুর্চি জানান, এখানে যে এত বড় জঙ্গি আস্তানা থাকতে পারে তা কল্পনাও করতে পারিনি। সোমবার রাত ১২ টার দিকে বাথরুম করতে বাইরে বের হলে দেখি পুলিশ। পুলিশ আমার পরিচয় জানতে চাইলে আমি এখানকার বাসিন্দা বলে পরিচয় দেই। একপর্যায়ে বাসায় চলে যাই। এরপর আজ (মঙ্গলবার) সকাল ৮টার দিকে নাস্তা করতে বাইরে বের হই। পুলিশের ব্যারিকেটের এখন বাসায় প্রবেশ করতে পারছি না।

তিনি জানান, সকালে জঙ্গি আস্তানার পাশের বাড়ি থেকে নাজমুল (১৭) নামের একজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায় পুলিশ। পরে জানা যায়, নাজমুলের মাধ্যমেই জঙ্গিরা বাসাটি ভাড়া নেয়। নাজমুল শেখেরচর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মুদি দোকানদার। বাদল বাবুর্চি জানান, নাজমুলের এক বোনের দেবর ওই জঙ্গিদের ব্যবসায়ী পরিচয়ে নাজমুলের কাছে নিয়ে আসেন। পরে নাজমুলের মাধ্যমে বিল্লাল মিয়ার ফ্ল্যাট ভাড়া নেয় জঙ্গিরা। এই এলাকার সোহেল মিয়া জানান, এলাকাটিতে শিল্প কারখান ও ঘনবসতিপূর্ণ হওয়ায় এখানে শ্রমজীবী মানুষ বেশি। সোমবার রাতে পুলিশ যখন বাড়িটি ঘেরাও করে তখন আমরা জানতে পারি যে, এখানে জঙ্গি আস্তানা আছে। এর আগে কল্পনাও করতে পারিনি যে, এখানে জঙ্গি থাকতে পারে।

ছোট গদাইরচর গাংপাড় এলাকার নিলুফা ভিলার পাশের বাড়ির বাসিন্দা ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন জানান, আমার বাড়ির ঠিক ১০০ গজ দূরে জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পাওয়া গেছে। কিন্তু এখানে জঙ্গি থাকার বিষয়টি আগে কখনও ভাবতেও পারিনি। কারণ, আমাদের এলাকাটি শান্তিপূর্ণ এলাকা। সন্ত্রাস-নৈরাজ্য বা জঙ্গি-নাশকতা আমরা কল্পনাও করি না। ব্যবসায়িক এলাকা হিসেবে এখানে বিভিন্ন জায়গা থেকে নতুন নতুন লোকজন আসেন। নতুন কেউ এলে আমরা মনে করি চাকরি বা ব্যবসা করতে এসেছেন। তাই তাদের ওপর কোনো নজরদারি করি না।

Print Friendly
User Rating: 0.0 (0 votes)
Sending