ইসলামী আন্দোলনের ৩০০ আসনের মনোনয়ন সম্পন্ন

ধর্মহীনদের সাথে জোট করে কল্যাণরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা সম্ভব নয় : পীর সাহেব চরমোনাই
বিডিমেট্রোনিউজ ডেস্ক ॥ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই বলেছেন, বড় দু’টি দলকে প্রত্যাখান করে দেশবাসী আগামী নির্বাচনে ইসলামী আন্দোলনের প্রতীখ হাতপাখাকে বিজয়ী করবে। ইসলামের হেফাযত প্রশ্নে ইসলামপন্থী সকল দলএক ও অভিন্ন হয়ে কাজ করবে বলে আমার বিশ্বাস। কাজেই তাগুতের সংশ্রব ত্যাগ করে আগামীতে ইসলামকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় বসাতে হবে।
তিনি বলেন, ধর্মহীন রাজনীতির দলসমূহ স্বাধীনতার পর থেকে ক্ষমতায় থাকার কারণে বাংলাদেশ বিশ্বে দুর্নীতিগ্রস্ত দেশসমূহের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে। টিআইবি’র রিপোর্টে ৯৭ ভাগ মন্ত্রী-এমপি দুর্নীতিগ্রস্ত বলা হয়েছে। ক্ষমতাসীনরা সবসময়ে সন্ত্রাস লালন-পালন করে যাচ্ছে। ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে মাদক কারবারীরা দেশকে অভয়ারণ্যে পরিণত করেছে। খুন-গুম, ধর্ষণসহ ঘুষ এখন কেই কেই অপরাধ মনে করে না। বাংলাদেশ ব্যাংকে রক্ষিত স্বর্ণ রিজার্ভও ডাকাতি হয়, প্রকাশ্যে কোটি কোটি টাকার কয়লা উধাও হয়। ব্যাংকের অর্থ লুটপাটকারীরা রেহাই পেয়ে যাচ্ছে। ক্ষমতাসীনদের জন্য আদালত চলে একরকম, বিরোধীদের বেলায় আরেক রকম। এ অধপতনের মূল কারণ ধর্মহীন রাজনীতি। যে কারণে মুসলিম প্রধান বাংলাদেশকে একটি কল্যাণরাষ্ট্রে পরিণত করতে ধর্মহীন রাজনৈতিক দল ও তাদের সহযোগী নীতিভ্রষ্ট কোন দলের সাথে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ জোটবদ্ধ হয়নি, ভবিষ্যতেও এসব দলের সাথে জোটবদ্ধ হবে না।
তিনি বলেন, যারা ইসলাম প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ইসলামকে প্রাধান্য দিবে ভবিষ্যতে কেবল তাদের সাথেই জোটবদ্ধ হবে ইসলামী আন্দোলন। তিনি বলেন, ক্ষুধা, দারিদ্র, বেকারত্ব, সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও মাদকমুক্ত কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাতপাখা প্রতীক নিয়ে ৩০০ আসনে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করবে। যদি কালো টাকা, পেশীশক্তি ও সন্ত্রাসমুক্ত অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়, তবে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ভালো ফলাফল করবে বলে আমাদের বিশ্বাস।
চরমোনাই পীর বলেন, নির্বাচন কমিশন যদি সরকারি দলকে পুনরায় ক্ষমতায় আনার প্রহসনের নির্বাচন করে তবে ইতিহাসে তারা বেঈমান হিসেবে চিহ্নিত হবে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য এখনো লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরী হয়নি। মাত্র নির্বাচনের হাওয়া বওয়ার কারণে সিরাজগঞ্জে ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থীর বাড়ী-ঘর জ্বালিয়ে দেয়াসহ আরো হুমকি দেয়া হচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশন যদি এব্যাপারে কোন ব্যবস্থা না নেয়, এর চেয়ে আরো বড় ধরণের ঘটনা ঘটতে পারে। এজন্য তিনি রিটানিং কর্মকর্তাদেরকে নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করতে অনুরোধ করেন।
তিনি বলেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর প্রার্থীরা আল্লাহকে রাজি খুশি  করতে জানমাল দিয়ে নির্বাচনী মাঠে নেমেছেন। তারা মাঠ ছাড়ার জন্য মাঠে নামেননি। তারা যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করে মাঠে থাকবেন।
গতকাল ৮টা থেকে দিনব্যাপী আইএবি মিলনায়তনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য পদপ্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রদান অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে একথা বলেন। তিনি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মাঝে আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়নপত্র প্রদানের মাধ্যমে ৩০০ আসনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রদান করেন।
মনোনয়নপত্র প্রদানের পূর্বে আলোচনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রিন্সিপাল সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানীও আল্লামা নূরুল হুদা ফয়েজী, নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুল হক আজাদ ও মাওলানা আব্দুল আউয়াল, মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, আহমদ আব্দুল কাইয়ূম, কেএম আতিকুর রহমান, মাওলানা নেছার উদ্দিন প্রমুখ। যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন হাসপাতাল থেকে সকলের কাছে তার আরোগ্যের জন্য দোয়া কামনা করেন। এসময় এক আবেগঘন পরিবেশ তৈরী হয়।
ছবি : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ পদপ্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রদান অনুষ্ঠানে  চরমোনাই পীরসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। 
Print Friendly
User Rating: 0.0 (0 votes)
Sending