কে হতে চলেছেন খুলনার নগর পিতা

বিডিমেট্রোনিউজ ডেস্ক ॥ আজ খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। কে হতে চলেছেন আগামী ৫ বছরে জন্য খুলনার নগর পিতা? এই নিয়ে যেন আলোচনার ঝড় উঠেছে সারা নগরজুড়ে। মহাটেনশনে প্রার্থীরা। আর ভোটাররা করছে কড়া হিসেব নিকেশ। কোন প্রতীকে ভোট দিবে। কাকে নগরপিতা বানালে মশা, আবর্জনা ও ভাঙ্গাচোরা রাস্তা উন্নয়ন করে সুন্দর নগরী উপহার দিবে। এ নিয়ে সারা শহরময়ের প্রতিটি অফিস আদালত চায়ের দোকান এমনকি পরিবারের মধ্যেও আলোচনা। সব মিলিয়ে খুলনা এখন উৎসব উদ্বেগ উৎকন্ঠা ও উত্তেজনার নগরী ।

আজ সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টার মধ্যে প্রায় ৫ লাখ ভোটার তাদের গনতান্ত্রিক অধিকার ভোট প্রদান করেবন। এই নির্বাচন আগামী জাতীয় নির্বাচনের আবহে পরিণত হয়েছে। গত রোবববার দুপুর থেকে টহল শুরু করে বিজিবি। নির্বাচনের জন্য ১৬ প্লাটুনে মোট ৬৪০ জন বিজিবি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। বিজিবি খুলনা সদর দফতরের টুআইসি মেজর হান্নান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গতকাল সোমবার দুপুর থেকে ব্যালট পেপার ও ব্যালট বাক্স বিতরণ করা শুরু হয় । ১ হাজার ৫৬১টি ভোটকক্ষের প্রতিটির জন্য একটি করে ও মোট ২৮৯টি ভোটকেন্দ্রের প্রত্যেকটির জন্য অতিরিক্ত হিসেব আরও একটি করে ব্যালট বাক্স বরাদ্দ রাখা হয়েছে। খুলনা বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্সে বিতরণ করা হয়। প্রিজাইডিং অফিসাররা এসব সামগ্রী গ্রহণ করেছেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ভোট সামগ্রী প্রায় সকল কেন্দ্রে পৌছে গেছে।

নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করতে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রের নিরাপত্তাসহ নগর জুড়ে নেয়া হয়েছে বাড়তি প্রস্তুতি। এছাড়া গত রোববার মধ্যরাত থেকে নির্বাচনের পরের দিন অর্থাৎ আগামীকাল ১৬ মে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত মটর সাইকেল এবং গতকাল সোমবার রাত ১২টা থেকে আজ ১৫ মে রাত ১২টা পর্যন্ত মহানগরে কার, বাস, জিপ, বেবিট্যাক্সি, অটোরিকশা, ট্যাক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, পিকআপ, ট্রাক ও টেম্পো চলাচলের ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ (কেএমপি)।

নগরীর ৩১টি ওয়ার্ডের ২৮৯টি ভোটকেন্দ্রের ১ হাজার ৫৬১টি কক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ৪ লাখ ৯৩ হাজার ৯৩ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এর মধ্যে ২ লাখ ৪৮ হাজার ৯৮৬ জন পুরুষ এবং ২ লাখ ৪৪ হাজার ১০৭ জন নারী ভোটার রয়েছেন।

নগরীর ২৪নং ওয়ার্ডের সোনাপোতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ২৭নং ওয়ার্ডের পিটিআই কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ করা হবে। খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) তথ্য মতে, ২৮৯টির মধ্যে ২৩৪টি কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ।

নির্বাচনে পাঁচজন মেয়র, ৩১টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর ১৪৮ এবং ১০টি সংরক্ষিত আসনে লড়ছেন ৩৯ জন নারী প্রার্থী। মেয়র প্রার্থীরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত তালুকদার আব্দুল খালেক, বিএনপি মনোনীত নজরুল ইসলাম মঞ্জু, জাতীয় পার্টির এস এম শফিকুর রহমান মুশফিক, ইসলামী আন্দোলনের মাওলানা মুজ্জাম্মিল হক ও সিপিবির মিজানুর রহমান বাবু। তবে, অন্য তিনটি দলের তিন প্রার্থী খুব একটা আলোচনায় নেই।

মূলত আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির প্রার্থীর মধ্যেই হচ্ছে কেসিসি মেয়র পদের মূল লড়াই।

Print Friendly
User Rating: 5.0 (1 votes)
Sending