খালেদা জিয়া কারাগার থেকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে

বিডিমেট্রোনিউজ ডেস্ক ॥ বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য কারাগার থেকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

আদালতের নির্দেশ অনুসারে আজ শনিবার বেলা ৩টা ১৮ মিনিটে সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে পুরান ঢাকার সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে গাড়িবহরে উঠানো হয়। গাড়িবহর হাসপাতালে এসে পৌঁছায় বিকেল পৌনে ৪টার দিকে।

সেখানে উপস্থিত আছেন বিএনপির মহাসচিব মিজা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দীন আলম, আবু নাসের রহমত উল্লাহ, চেয়ারপারসনের গণমাধ্যম শাখার সদস্য শায়রুল কবির খান প্রমুখ।

এ সময় শাহবাগ এলাকায় প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছিল। সেখানে আগে থেকেই হুইল চেয়ার নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন হাসপাতালের দুজন কর্মচারী। গোটা এলাকাই ছিল নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের একটি বিশেষ গাড়িতে করে হাসপাতালে পৌঁছানোর পর পরই র‍্যাবসহ অন্যান্য বাহিনীর নিরাপত্তাকর্মীরা কয়েকটি ছাতা নিয়ে খালেদা জিয়ার গাড়ির সামনে এসে দাঁড়ান। একজন গাড়ির দরজা টেনে খুলে দিলে খালেদা জিয়া ধীরে ধীরে বাইরে বেরিয়ে আসেন। এ সময় সেখানে তাঁর ব্যক্তিগত সহকারী ফাতেমাও ছিলেন।

বিএনপির চেয়ারপারসনের পরনে ছিল গোলাপি শাড়ি আর চোখে ছিল পরিচিত সেই রোদচশমা। গাড়ি থেকে নামার পরই সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে হুইল চেয়ারে বসিয়ে কেবিন ব্লকের দিকে নিয়ে যাওয়া হয়।

আজ শনিবার বিকেলে এক ব্রিফিংয়ে  হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আব্দুল্লাহ আল হারুন জানান, কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে । গত বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে চিকিৎসার বিষয়ে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।

ব্রিফিংয়ে বিএসএমএমইউ পরিচালক বলেন, ‘বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদী দলের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারাগার থেকে এসে আমাদের এখানে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। উনি বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের কেবিন ব্লকের ৬ তলায় অবস্থান করছেন। উনার বিষয়ে মহামান্য আদালত থেকে জারি করা আদেশ অনুযায়ী আমরা মেডিকেল বোর্ড গঠন করেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘খালেদা জিয়া আসার পরে উনার কেবিনে বোর্ডের সভাপতি, উনি যার অধীনে ভর্তি হয়েছেন প্রফেসর ডা. অধ্যাপক এমএম জলিল চৌধুরী উনাকে দেখেছেন। চিকিৎসা শুরুর আগে যা যা সৌজন্যতা সব উনি কমপ্লিট করেছেন। খালেদা জিয়া আমাদের হাসপাতালে ভর্তিরত অবস্থায় আছেন।’ আগামীকাল রোববার দুপুর ১টার পরে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট মেডিকেল বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হবে জানিয়ে হাসপাতাল পরিচালক বলেন, ‘ওই বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী উনার (খালেদা জিয়া) চিকিৎসা আমরা শুরু করতে পারব ইনশাল্লাহ।’

এর আগে দুপুরে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য পাঁচ সদস্যের মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। এই টিমের প্রধান করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ইন্টারনাল মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক এমএম জলিল চৌধুরীকে। এ ছাড়া সদস্য করা হয়েছে- রিমোটলোজি বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ আতিকুল হক, কার্ডিওলোজি বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক সজল কৃষ্ণ ব্যানার্জী, অর্থোপেডিক বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান নকুল কুমার দত্ত ও ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক বদরুন্নেসা। এই মেডিকেল টিমের সঙ্গে তার ব্যক্তিগত পছন্দের চিকিৎসক ডা. মামুনসহ তিনজন থাকবেন।

Print Friendly
User Rating: 0.0 (0 votes)
Sending