গেইল ঝড় দেখল আইপিএল, দেখল ধোনির লড়াই

বিডিমেট্রোনিউজ ডেস্ক ॥ রোববার দলের হয়ে গেইল দেখিয়েছেন এখনও হারিয়ে যাননি তিনি। ব্যাট হাতে এখনও তিনি বোলারদের বুকে কাঁপন ধরাতে পারেন।

টি২০ ক্রিকেটে গেইল ঝড় তোলেননি- এমনটি হয়েছে খুব কম। তাই টি২০’র বড় এক পোস্টার ক্রিস গেইল। ১০ হাজারের বেশি রান করেছেন স্বল্প ওভারের এই ক্রিকেটে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই ব্যাটসম্যান আইপিএলের ১১তম আসরে দলই পাচ্ছিলেন না। রয়েল চ্যালেঞ্জার্স তাকে ছেড়ে দিলে এবারের আইপিএল খেলতে পারবেন কিনা- সেই শঙ্কায় ছিলেন টি২০ তে ১৮ সেঞ্চুরির মালিক এই ওপেনার। শেষ পর্যন্ত কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব তাকে ২ কোটি রূপিতে দলে নিয়েছে। প্রথম ম্যাচে তো দলেই জায়গা পাননি তিনি।

রোববার চেন্নাই সুপার কিংস অধিনায়ক মাহেন্দ্র সিং ধোনি টসে জিতে পাঞ্জাবকে ব্যাটে পাঠান। ব্যাটে নেমে দারুণ শুরু করে পাঞ্জাব। কেএল রাহুল এবং গেইল শুরুতেই ঝড় তোলেন। ২২ বলে ৩৭ রান করে দলীয় ৯৬ রানে ফিরে যান রাহুল। এরপরও চলে ‘গেইল ঝড়’।

গেইল করেন ৩৩ বলে ৬৩ রান। স্টাইক রেট চোখে লাগার মতো। ১৯০ স্টাইক রেটে রান তোলেন তিনি। মেরেছেন চারটি ওভার বাউন্ডারি ও সাতটি চার। নিজের ৬৩ রানে যখন আউট হন তখন দলের সংগ্রহ ১১ ওভার ৩ বলে ২ উইকেটে ১২৭। দলের জন্য অসাধারণ এই ইনিংস খেলে গেইল আবারও যেন বুঝিয়ে দিলেন তিনি ‘বাতিল’ হয়ে যাননি।

২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৯৭ রান তোলে পঞ্জাব৷ যদিও একসময় দু’শো রানের গণ্ডি ছাপিয়ে যাওয়া কেবল সময়ের অপেক্ষা বলে মনে হচ্ছিল অশ্বিনদের৷ ক্রিস গেইল যতক্ষণ ব্যাট করছিলেন, চার-ছক্কার ঝড় বইছিল মোহালিতে৷ গেইল আউট হতেই রান তোলার গতি কমে৷ শেষমেশ পঞ্জাবকে দু’শোর কমে আটকে রেখে মানসিকভাবে লড়াইয়ে টিকে থাকে ধোনির চেন্নাই৷

জবাবে ব্যাট করতে নেমে চেন্নাই দুই ওপেনার শেন ওয়াটসন (১১) ও মুরলি বিজয়ের (১২) উইকেট হারিয়ে বসে৷ স্যাম বিলিংস মাত্র ৯ রানে আউট হয়ে বসেন৷ তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামা আম্বাতি রায়াড়ু ব্যক্তিগত অর্ধশতরানের দোরগোড়ায় রানআউট হয়ে বসেন৷ ৩৫ বলে ৪৯ রানের ইনিংসে রায়াড়ু ৫টি চার ও ১টি ছয় মারেন৷

রবীন্দ্র জাদেজাকে সঙ্গে নিয়ে ধোনির দুরন্ত লড়াই চেন্নাইয়ের জয়ের সম্ভাবনা উজ্জ্বল করে৷ যদিও শেষ রক্ষা হয়নি৷ জাদেজা ১৩ বলে ১৯ রান করে আউট হন৷ জিততে হলে শেষ দু’ওভারে চেন্নাইকে ৩৬ রান তুলতে হত৷ ১৯তম ওভারে ১৯ রান তোলেন ধোনি৷ তবে শেষ ওভারে জয়ের মুখোমুখি হয়েও লক্ষ্যে পৌঁছনো হয়নি সিএসকে’র৷ ধোনি ৬টি চার ও ৫টি ছক্কার ৪৪ বলে ৭৯ রান করে অপরাজিত থেকে যান৷ চেন্নাইকে থামতে হয় ৫ উইকেটে ১৯৩ রানে৷

শেষ বলে ছয় মেরেও চেন্নাইকে জেতাতে পারলেন না মহেন্দ্র সিং ধোনি৷ জয়ের জন্য শেষ ওভারে সিএসকের দরকার ছিল ১৭ রান৷ মোহিত শর্মার প্রথম বলে সিঙ্গল নেন ব্র্যাভো৷ একটা বল ওয়াইড হয়৷ একটা চার ও একটা ছক্কার সাহায্যে ধোনি তোলেন আরও দশ রান৷ সাকুল্যে শেষ ওভারে ওঠে ১২ রান৷ কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে উত্তেজক ম্যাচে চেন্নাইকে হার মানতে হয় ৪ রানের সংক্ষিপ্ত ব্যবধানে৷

ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন ক্রিস গেইল৷

Print Friendly
User Rating: 5.0 (1 votes)
Sending