চল্লিশ পেরোনো চোখের ক্ষতি রুখে দিতে পারে যেসব খাবার

বিডিমেট্রোনিউজ ডেস্ক ॥ আধুনিক জীবনযাত্রা ও পেশার চাপে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কম্পিউটারের দিকে তাকিয়ে বসে থাকতে হয়, কখনও বা রাত জেগেও করতে হয় কাজ। ফলে কম বয়সেই দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়ার ঘটনা আজকাল একেবারেই বিরল নয়। চল্লিশ পেরলেই চালসের সমস্যাও বিশ্বে নতুন নয়।

চিকিৎসকদের মতে, ম্যাকুলার ডিজেনারেশন-ই মূলত দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়ার জন্য দায়ী। একটু বয়স বাড়লেই চোখের সমস্যা ডেকে আনে মূলত এই কারণই। চক্ষুরোগ বিশেষজ্ঞ সোমনাথ সরকারের মতে, ‘‘বয়স বাড়ার সঙ্গে যে চালসে হানা দেয় আমাদের শরীরে, তা মূলত শারীরবৃত্তীয় জটিলতাই। শতকরা প্রায় ৭৫ শতাংশ মানুষই এর শিকার। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে স্বাভাবিক ভাবেই এমনটা ঘটে। তবে ম্যাকুলার ডিজেনারেশনই এর জন্য দায়ী। তাই এর প্রতি যত্নবান হলে চালসে ঠেকিয়ে রাখা সম্ভব। অন্তত বৃদ্ধ বয়স পর্যন্তও রুখে দেওয়া যাবে চালসে।’’ তা হলে এই ক্ষয়কে রুখে দিতে পারলেই দৃষ্টিশক্তি তীক্ষ্ণ রাখা সম্ভব- কেমন করে?

এই ‘কী ভাবে’-র উত্তর খুঁজছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ‘ওয়েস্টমিড ইনস্টিটিউট ফর মেডিক্যাল রিসার্চ’-এর বিজ্ঞানীরা। প্রায় ২ হাজার জন অস্ট্রেলীয়কে নিয়ে প্রায় ১৫ বছর ধরে এই পরীক্ষাটি করা হয়েছে। সম্প্রতি ‘অ্যাকাডেমি অব নিউট্রিশন অ্যান্ড ডায়াটেটিক্‌স’-এ প্রকাশিত হয়েছে এই পরীক্ষাটির বিশদ বিবরণ।

গবেষকদের মতে, আমাদের চার পাশে এমন দু’টি সব্জি আছে যা সহজেই এই ম্যাকুলার ডিজেনারেশনকে প্রতিরোধ করতে পারে। নাইট্রেট সমৃদ্ধ সব্জি পালংশাক ও বিটকেই এই সমস্যার অন্যতম প্রতিষেধক বলে দাবি করছেন বিজ্ঞানীরা।

প্রতি ১০০ গ্রাম পালংশাকে ২০ মিলিগ্রাম করে নাইট্রেট থাকে। ১০০ গ্রাম বিটে থাকে ১৫ মিলিগ্রাম নাইট্রেট। আর এই দুই খাবারকেই পরীক্ষায় ব্যবহৃত মানুষদের একাংশের প্রতি দিনের ডায়েটে যথেষ্ট পরিমাণে রেখেছিলেন বিজ্ঞানীরা। ফলস্বরূপ দেখা গিয়েছে, পালং শাক ও বিটের ডায়েটে থাকা মানুষদের শরীরে নাইট্রেট প্রবেশ করেছে বেশি। এবং বয়স বাড়লেও তাঁদের দৃষ্টিশক্তি কমেনি একটুও।

মূল গবেষক বামিনি গোপীনাথের মতে, ‘‘দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়ার প্রবণতা সবথেকে বেশি থাকে ৫০ বছরের পরে। কিন্তু গবেষণায় দেখা গিয়েছে যাঁরা দিনে ১৪২ মিলিগ্রামের বেশি নাইট্রেট খান তাঁরা এই ধরনের অসুখের শিকার হননি।’’

সোমনাথ বাবুর মতেও পালং শাক ও বিটে প্রটুর নাইট্রেট। আর এই নাইট্রেট পারে চোখকে সুস্থ রাখতে। তাঁর মতে, ‘‘পালং বিটের সঙ্গে যদু গেঁড়ি-গুগলি ও মুড়োসমেত চারামাছ খেতে পারেন, তা হলে ফল পাবেন আরও ভাল।’’

সুতরাং চোখের যত্নে আজ থেকেই প্রয়োজনীয় খাদ্যের উপর জোর দিন। নাইট্রেট সমৃদ্ধ এই সব খাবারই পারে আপনার রেটিনাকে সুস্থ রাখতে।

Print Friendly
User Rating: 0.0 (0 votes)
Sending