ধর্ষণে পাপ হয় না রে পাগলা : ভক্তকে আসারাম বাপু

বিডিমেট্রোনিউজ ডেস্ক ॥ জোড়া ধর্ষণে অভিযুক্ত গুরমিত রামরহিম সিংয়ের ২০ বছরের কারাদণ্ড হয়েছিল। তার ঠিক ৮ মাস পরেই গত বুধবার নাবালিকা ধর্ষণে অভিযুক্ত আসারাম বাপুকে আরও বড়ো সাজা মাথা পেতে নিতে হয়েছে। আমৃত্যু কারাবাস করতে হবে তাকে।

সূত্রের খবর, আসারামের বিরুদ্ধে ধর্ষনের অকাট্য প্রমাণ হাজির করেছিলেন তারই ভক্তরাই। এমনই এক ভক্ত হলেন রাহুল কে সাচার। রাহুল জানিয়েছেন যৌন-সক্ষমতা বাড়াতে বিভিন্ন ধরনের ওষুধ নিতেন আসারাম।

তিনি আরও জানান, ২০০৩ সালে রাজস্থানের পুষ্কর, হরিয়ানার ভিবানী এবং গুজরাতের আমদাবাদে তিনি নিজের চোখে আসারামকে মেয়েদের শ্লীলতাহানি করতে দেখেছেন। ব্যপারটা  ভালো লাগত না রাহুলের। কিন্তু প্রশ্ন করতেও ভয় হত। একদিন তিনি বাপুর উদ্দেশ্যে চিঠি লিখলেন। কোনও উত্তর না আসায় ফের চিঠি লেখেন। তাতেও কোনও উত্তর না আসায়, তিনি সরাসরি আসারামকে প্রশ্ন করেন, কেন এভাবে মেয়েদের ওপর অত্যাচার করা হচ্ছে? তাতেও কোনও উত্তর না আসায়। শেষমেশ সাহস সঞ্চার করে একদিন রাতে কুঠিতে ঢুকে তিনি হাতেনাতে ধরে ফেলেন বাপুকে।  পালানোর সুযোগ নেই বুঝে আসারাম তাঁকে বলে, ‘ধর্ষণে পাপ হয় না রে পাগলা, আমার মতো ব্রহ্মজ্ঞানী।’

বুলেটের মতো পালটা প্রশ্ন করেন সাচার, এক জন ব্রহ্মজ্ঞানীর এত যৌন লালসা আসে কোথা থেকে? না এই প্রশ্নের জবাব দেননি বাপু। বরং দেহরক্ষীদের দিয়ে আশ্রম থেকে ঘাড়ধাক্কা দিয়ে বের করে দিয়েছিলেন রাহুলকে।         

Print Friendly
User Rating: 5.0 (1 votes)
Sending