ভারতের মৎস্য অধিকর্তা ইলিশ রক্ষার কবি ও আবৃত্তিকার

বিডিমেট্রোনিউজ ডেস্ক ॥ ইলিশ রক্ষায় অভিনব উদ্যোগ নিয়েছেন ভারতের এক মৎস্য অধিকর্তা। মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে নিজেই কবিতা লিখে আবৃত্তি করছেন এই মৎস্য আধিকারিক।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের পূর্ব মেদিনীপুর জেলার হলদিয়ার এই মৎস্য আধিকারিকের নাম সুমন কুমার সাহু। সোশ্যাল মাধ্যমে ইউটিউবে তার স্বকন্ঠে ইলিশ রক্ষার কবিতা শুনে মুগ্ধ দর্শকশ্রোতা। কবিতা “হর্ষে ইলিশ”ইতিমধ্যেই তাকে জনপ্রিয় করে তুলেছে।

“স্বকন্ঠে সুমন” নামের একটি কবিতার এ্যালবাম সদ্য প্রকাশিত হয়েছে। তিরিশটি স্বরচিত কবিতার মধ্যে একটি রয়েছে ইলিশ নিয়ে কবিতা।  ইলিশ রক্ষায় মৎস্য আধিকারিকের এই উদ্যোগ খুব প্রশংসা কুড়োচ্ছে। যা ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম ছাড়িয়ে বাংলাদেশেও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

সুমন কুমার সাহু পশ্চিমবঙ্গে রাজ্যের মানচিত্রে এর মধ্যেই নতুন নতুন কয়েকটি মাছের চাষের প্রবক্তা হিসেবে নিজের আলাদা একটি পরিচয় তৈরি করেছেন।

আমুর কার্প, পেংবা মাছ, মিল্ক ফিশ, মুক্তোগাছা প্রভৃতি মাছের চাষ বাংলায় চাষিদের দিয়ে তিনি শুরু করিয়েছেন । “ফিশারী ফ্যামিলি ফার্মিং” এর মাধ্যমে এশিয়া মহাদেশে প্রথম ফার্মিং স্কুল প্রশিক্ষনেরও ব্যাবস্থা করেন।

বাংলাদেশেও মৎস্যক্ষেত্রের নিকটবন্ধু সুমন সাহু। বাংলাদেশের “বিডিফিশ” এর একজন অন্যতম লেখক। এছাড়া ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা, প্রতিদিন, একদিন সংবাদপত্র প্রভৃতি প্রথম শ্রেনীর দৈনিকে সুপ্রতিষ্ঠিত কলমকার হিসেবেও তিনি বিশেষ  পরিচিত একজন মৎস্য বিশেষঞ্জ ।

পেশার সাথে সাথে কবিতা লেখা তার অন্যতম নেশা। বাচিক শিল্পী হিসেবে “স্বকন্ঠে সুমন” তার প্রথম প্রয়াস। কৃষ্টি ক্রিয়েশান থেকে পরিবেশিত হয়েছে স্বরচিত কবিতা পাঠের সিডি। বাকি কবিতাগুলোর উপস্থাপনও অসাধারণ।

“হর্ষে ইলিশ” কবিতার শেষ পংতিতে লিখেছেন,-

“মাঝি মাল্লা নদীর রাজা, হাঁক দিয়েছে শোন –

ওরে হাজার ব্যাকুল মন ,

মা-ইলিশে ডিম পাড়তে দিস

আর প্রজন্মের তরে রেখে-যা ইলিশ

Print Friendly
User Rating: 0.0 (0 votes)
Sending