ড. মাওলানা জসিম উদ্দিন নদভীর ইন্তেকালে পীর সাহেব চরমোনাইর শোক

বিডিমেট্রোনিউজ ডেস্ক ॥ ইসলামী আন্দোলনের সহযোগি সংগঠন জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদের চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি ও কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক দেশের ঐতিহ্যবাহী দীনি প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম দারুল মাআরিফের সহকারী পরিচালক ড. মাওলানা জসিম উদ্দিন নদভী ইন্তেকাল করেছেন, ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

সোমবার রাত আনুুমানিক দেড়টায় সৌদির কিং ফয়সাল হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। তিনি পবিত্র ওমরাহ পালনের উদ্দেশ্য স্ব-পরিবার সৌদি যান। সেখানে তিনি অসুস্থ হলে হাসপাতালে ভর্তি হন। তিনি ডায়াবেটিস লো, জ্বর, কাশি, রক্তবমি হওয়াতে হসপিটালে ভর্তি হয়েছিলেন।

পীর সাহেব চরমোনাই’র শোক ও দোয়া : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতি সৈয়দ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই ও মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ ড. মাওলানা জসিম উদ্দিন নদভীর ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।
এক শোকবার্তায় নেতৃদ্বয় মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বলেন, ড. মাওলানা জসিম উদ্দিন নদভী ছিলেন ওলামায়ে কেরামদের মধ্যে অন্যতম একটি উজ্জ্বল নক্ষত্র। তাঁর ইন্তেকালে দেশবাসী একজন প্রাজ্ঞ আলেমেদীনকে হারালেন। আল্লাহ তাআলা তাকে জান্নাতের সর্বোচ্চ মর্যাদা দান করুন, আমীন।
ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদের শোক : জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল্লামা নূরুল হুদা ফয়েজী ও সেক্রেটারী জেনারেল মাওলানা গাজী আতাউর রহমান সংগঠনের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি ড. মাওলানা জসিম উদ্দিন নদভী ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।
নেতৃদ্বয় বলেন, ড. জসিম উদ্দিন নদভী একজন বরেণ্য আলেম, হাদীস বিশারদ ছিলেন। তিনি ইসলামী আন্দোলনের অকুতোভয় বীল সীপাহসালার ছিলেন। দীন বিজয়ের আন্দোলনে তিনি মর্দে মুজাহিদের ভুমিকা পালন করেছেন। তাঁর ইন্তেকালে দেশবাসী একজন বরেণ্য ও মুহাক্কিক আলেমকে হারালো। যার অভাব দীর্ঘদিন অনুভুত হবে। মহান রব্বুল আলামিন তাঁর সকল নেক আমল কবুল করে তাঁকে জান্নাতের সর্বোচ্চ মর্যাদা দান করুন আমীন। তিনি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-২ আসনে ইসলামী আন্দোলন থেকে হাতপাখায় প্রতিদ্বন্ধিতা করেছিলেন।
মরহুমের স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত : ড. মাওলানা জসিম উদ্দিন নদভী ইন্তেকালে বাদ জোহর পুরানা পল্টনস্থ আইএবি মিলনায়তনে এক দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে কেন্দ্রীয় ও নগর নেতৃবৃন্দ শরীক হন।

 

Print Friendly
User Rating: 0.0 (0 votes)
Sending