তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয়কমিটি, ফ্রান্স শাখার প্রতিবাদ সভা

ফাহাদ রিপন,প্যারিস: সুন্দরবনকে রক্ষায় বাংলাদেশ সরকার যেসব অঙ্গীকার করেছিল, তা যথাযথভাবে পূরণ করা হচ্ছে না বলে মনে করে জাতিসংঘের বিজ্ঞান, শিক্ষাও ঐতিহ্যবিষয়ক সংস্থা ইউনেসকো।

প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন(ইসিএ) হিসেবে চিহ্নিত ওই এলাকায় ১৫৪টি শিল্প কারখানা চালু রয়েছে। চারপাশে শিল্পের প্রসারে ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে সুন্দরবন। জীববৈচিত্র্য পড়েছে হুমকিতে। সরকার সুন্দরবনের ২০ কিলোমিটারের মধ্যে দুটি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের কাজ এগিয়ে নিচ্ছে, যা সুন্দরবনের জন্য আরও বড় হুমকি তৈরি করবে। সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্যের ক্ষতি হবে জেনেও বাংলাদেশ সরকারের আত্মঘাতী এ সকল সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এবং ৩০ জুন থেকে আগামী ১০ জুলাই পর্যন্ত আজারবাইজানের রাজধানী বাকুতে বিশ্ব–ঐতিহ্য কমিটির বার্ষিক সাধারণ সভাকে সামনে রেখে, তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি, ফ্রান্স শাখার আয়োজনে গত ২৪ জুন ২০১৯, প্যারিসের একটি রেস্টুরেন্টে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের আহ্বায়ক ফাহাদ রিপন এবং সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সদস্য সচিব রাকিবুল ইসলাম।

সভায় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় কমিটি, ফ্রান্স শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক রহমতউল্লাহ চৌধুরী সুজন, সদস্য আহমেদ আলী দুলাল, সাখাওয়াত হোসেন হাওলাদার, জুয়েল দাশ রায় লেনিন, জহির উদ্দিন ভূঁইয়া, উদয়ন বড়ুয়া, স্বদেশ বড়ুয়া চন্দন, অপু সাহা প্রমুখ।

প্যারিসের এ প্রতিবাদ সভা থেকে বাংলাদেশ সরকারকে রামপাল প্রকল্পসহ সুন্দরবনের চারপাশের সকল শিল্পকারখানাকে বাতিল করার আহ্বান জানানো হয়।

প্রতিবাদ সভা থেকে প্রস্তাব করা হয় সুন্দরবনকে রক্ষা করার জন্য প্যারিসে  অবস্হিত  জাতিসংঘের বিজ্ঞান, শিক্ষা ও ঐতিহ্য বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কোর সামনে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হবে এবং সুন্দরবন রক্ষা আন্দোলনের সাথে ফ্রান্সের স্হানীয় সংগঠনগুলোকে যুক্ত করে এ আন্দোলনকে আরও শক্তিশালী করা হবে।

Print Friendly
User Rating: 0.0 (0 votes)
Sending