মানিকগঞ্জ-৩ আসনের উন্নয়নের রূপকার

জাহিদুল হক চন্দন,মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি: মানিকগঞ্জ জেলাটি ঢাকার অদূরে অবস্থিত হলেও বিগত দিনে তেমন কোন উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। যার ফলে দেশের অন্যান্য জেলার তুলনায় ব্যবসা বাণিজ্য,যাতায়াত, শিক্ষা, চিকিৎসাসহ বিভিন্ন বিষয়ে পিছিয়ে পড়ে এ জেলাটি। তবে বিগত আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে মানিকগঞ্জ-৩ আসনে (মানিকগঞ্জ ও সাটুরিয়া) দৃশ্যমান উন্নয়ন হয়েছে। উন্নয়নের এ ধারাকে আগামী দিনে আরো এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন এ আসনের সংসদ সদস্য ও স্বাস্থ্য মন্ত্রী আলহাজ্ব জাহিদ মালেক স্বপন।

মানিকগঞ্জ-৩ আসনটি মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার সাতটি টি ইউনিয়ন,একটি পৌরসভা ও সাটুরিয়া উপজেলা নিয়ে গঠিত।নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসন থেকে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী আলহাজ্ব জাহিদ মালেক স্বপন নির্বাচিত হন। তিনি ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র প্রয়াত কর্ণেল আব্দুল মালেকের ছেলে।

এ আসনটিতে বিগত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন জাহিদ মালেক স্বপন। নির্বাচিত হয়ে তিনি স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত বছরের ৩০ শে ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি আবারো বিপুল ভোটে নির্বাচিত হোন। বর্তমানে তিনি স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রনালয়ের স্বাস্থ্য মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

তার সঠিক পরিকল্পনা, অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে মানিকগঞ্জ শহর, সাটুরিয়ার প্রতিটি এলাকায় উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। মানিকগঞ্জে কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজ ভবন, ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল ভবন, মানিকগঞ্জ ডায়বেটিস হাসপাতাল ভবন, নার্সেস ট্রেনিং ইনস্টিটিউট, ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি, ফ্যামিলি ওয়েলফেয়ার ভিজিটর ট্রেনিং ইনস্টিটিউট, মা-শিশু ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র, জেলা পরিবার পরিকল্পনা ভবন, চীফ জুডিশিয়াল ভবন,আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস,রেজিষ্ট্রার ও সাব-রেজিষ্ট্রার ভবন, জেলা পরিষদ ভবন ও অডিটোরিয়াম,জেলা মুক্তিযোদ্ধা ভবন, শিল্পকলা একাডেমি ভবন, সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ একাডেমিক ভবন ও হোস্টেল, ২৯৭ মিটার বেউথা ব্রীজ, সাটুরিয়ায় মেডিকেল এ্যাসিস্ট্যান্ট ট্রেনিং স্কুল, ডাক বাংলো, উপজেলা কমপ্লেক্স, মুক্তিযোদ্ধা ভবন, কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট, ফায়ার স্টেশন, তিল্লী ইউনিয়নে কালীগঙ্গা নদী শাসন বাঁধ নির্মাণ, ২৭৫ মিটার তিল্লী ব্রীজসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন।

ফলে অবহেলিত এ জনপদে সাধারন মানুষের জীবন যাত্রার মান বেড়েছে। রাস্তা ঘাটের উন্নয়নের ফলে মানিকগঞ্জ শহরের সাথে টাঙ্গাইলের আঞ্চলিক যোগাযোগ বেড়েছে। সাধারণ সবজি চাষিরা সহজে ফসলি জমি থেকে সবজি তুলে তা দেশের সব জায়গায় সরবরাহ করতে পারছেন।

বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্মাণ, মাদ্রাসার উন্নয়ন, নতুন নতুন একাডেমিক ভবন নির্মিত হয়েছে। এতে করে শিক্ষা ব্যবস্থা দিন দিন উন্নত হয়েছে।
স্বাস্থ্য সেবা সহজ ও বিনামূল্যে সাধারন মানুষের মাঝে দেওয়ার সকল ব্যবস্থা করেছেন।

বিভিন্ন মসজিদ, মন্দির, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণ, ইউনিয়ন ভিত্তিক বিভিন্ন উন্নয়নের ফলে এ আসনের সাধারণ মানুষ সুফল পেতে শুরু করেছেন।
মানিকগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও স্বাস্থ্য মন্ত্রী আলহাজ জাহিদ মালেক স্বপন বলেন, স্বাস্থ্য-শিক্ষা অবকাঠামোসহ সার্বিক ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষের চাহিদাকে প্রাধান্য দিয়ে কাজ করেছি। আগামীতে এ জেলায় ইকোনমিকজোনসহ আরো উন্নয়নমূলক কাজ হবে।

Print Friendly
User Rating: 0.0 (0 votes)
Sending