শীতে হানা দিতে পারে করোনা, মুক্ত থাকতে করণীয়

জ.ই বুলবুল

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ওয়েভ শুরু হয়েছে ইউরোপে। আসন্ন শীতে বাংলাদেশেও আঘাতের শঙ্কা। তাই সতর্ক থাকার বিকল্প নেই। আমরা একটু সতর্ক থাকলেই ভাল থাকবো।

মনে রাখবেন করোনা মানেই মৃত্যু নয়! ফলে রোগটি নিয়ে অযথা আতঙ্কিত হওয়ারও কিছু নেই। এ সময় যেটি সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ, তা হলো- সাবধানতা। অবশ্যই রোগটির ব্যাপারে আমাদের বেশি বেশি সচেতন হতে হবে। সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। তবেই করোনা ভাইরাস থেকে দূরে থাকতে পারবো। এ ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে।

এগুলো হলো:

– গণপরিবহন বা ভাড়ায় চালিত যানবাহনের ব্যবহার এড়িয়ে চলা।
– ঘরে অবস্থানকালে পরিবারের অন্যদের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলতে হবে।
– আক্রান্ত ব্যক্তি হাঁচি-কাশি দিলে ওই টিস্যু ব্যবহার করবেন না এবং টিস্যুটি পুড়িয়ে ফেলতে হবে, যাতে সেখান থেকে ভাইরাস না ছড়ায়। ভালো মাক্স না হলে তা একদিনের বেশি ব্যবহার না করায় উচিত।
– কেউ যদি রুমাল ব্যবহার করেন, তা হলে রুমাল ও হাত সাবান দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।
– বাইরে থেকে ঘরে ঢুকে গোসল বা সাবান দিয়ে অন্তত ২০ সেকেন্ড ধরে দুই হাত ধুয়ে নেবেন অথবা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে পারেন।
– করমর্দন, কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন এবং জনসমাগম এড়িয়ে চলুন। মাস্ক পড়বেন সবসময় বাইরে। ঘরে নয়। কাজের প্রয়োজন ছাড়া বাইরে কম যাবেন, তবে বয়স্ক যারা তারা না বেরোলেই ভালো।
– দেহে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য প্রতিদিন সুষম খাবার, ভিটামিন সি জাতীয় খাবার বেশি বেশি খাবেন, টাটকা শাকসবজি ও ফলমূল খেতে পারেন, রং চা, গরম পানির ভাপ ইত্যাদি ও নেবেন, নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে। ধূমপান ও মদ্যপান ত্যাগ করুন।
– খাবার ভালোভাবে সিদ্ধ করে খাবেন এবং শাকসবজি ভালোভাবে ধুয়ে আধা ঘণ্টা অন্তর ভিজিয়ে নেবেন।
– ডিম পোচ করে না খেয়ে ; ভালোভাবে ভাজি করে খাবেন। খাবার দাবার থেকে খুব একটা ছড়ায় না।
– যেখানে সেখানে হাঁচি-কাশি দেবেন না এবং কফ-থুতু ফেলবেন না। যাদের হাঁচি-কাশি, এমনকি সর্দি হয়েছে, তারা মাস্ক ব্যবহার করুন। বিশেষ করে মাস্ক বিহীন অবাধ বিচরণ করবেন না।

আসন্ন শীত মৌসুমে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ার আশংকা করে ইতিমধ্যে মন্ত্রীসভায় কঠোর নির্দেশনাও দিয়েছে সরকার। আমরা প্রতিদিন কোথাও না কোথাও ভাইরাসের সংক্রমণে হয়ে যাচ্চি কিন্তু!
হয়তো তা শরীরে প্রবেশ বা সহজে আক্রমন করতে পারছে না ভাগ্যক্রমে! যা আমরা চোখেও দেখছি না। তবে সচেতনতা আর আল্লাহর রহমতেই বেঁচে যাচ্ছি। আর করোনা কিন্তু সহসাই যাচ্ছে না, তা নিয়েই বসবাস করে যেতে হবে আমাদের, তবে সচেতন থাকলেই কিন্তু রক্ষা।

লেখক: সাংবাদিক ও স্বাস্থ্য বিষয়ক নিবন্ধকার
ইমেল: bulbulbd12@yahoo.com

Print Friendly
User Rating: 0.0 (0 votes)
Sending