বল কুড়াতে কুড়াতেই দ্বিতীয় দিন পার, ৩৪৩ রানের লিড ভারতের

বিডিমেট্রোনিউজ ডেস্ক ॥ বল কুড়াতে কুড়াতেই ইন্দোর টেস্টের দ্বিতীয় দিন পার করল টাইগাররা। সারাদিনের পরিশ্রমের ফসল মাত্র ৫ উইকেট। প্রথম দিনে বাংলাদেশকে ১৫০ রানে গুড়িয়ে দেয়া ভারত দ্বিতীয় দিনেই ৩৪৩ রানের বিশাল লিড নিয়েছে। ভারতের ব্যাটিংয়ে পিষ্ট বাংলাদেশ।

আগের দিনে ১ উইকেটে ৮৬ রান নিয়ে শুক্রবার ফের ব্যাটিংয়ে নামে ভারত। দ্বিতীয় দিনে ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ডাবল সেঞ্চুরিতে ৬ উইকেটে ৪৯৩ রান তুলে নেয় স্বাগতিকরা। দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে ভারতের লিড ৩৪৩ রান। হাতে আছে আরও ৪ উইকেট। ৬০ ও ২৫ রানে অপরাজিত রয়েছেন রবিন্দ্র জাদেজা ও উমেশ যাদব।

টাইগার বোলারদের তুলোধুনো করে ক্যারিয়ারের অষ্টম টেস্টে দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল। দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশনে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে ক্যাচ আউট হওয়ার আগে ২৮টি চার ও ৮টি ছক্কা ক্যারিয়ার সেরা ২৪৩ রান করেছেন আগারওয়াল। অবশ্য ব্যক্তিগত ৩২ রানেই সাজঘরে ফেরার কথা ছিল তার।

বৃহস্পতিবার দিনের খেলা শেষ হওয়ার ১৫ বল বাকি থাকতেই আবু জায়েদ রাহীর বলে ফাস্ট স্লিপে ক্যাচ তুলে দেন মায়াঙ্ক। কিন্তু অপ্রস্তত থাকা ইমরুল কায়েস গুরুত্বপূর্ণ ক্যাচটি তালুবন্দি করতে পারেননি। লাইফ পেয়ে ভালোভাবেই সুযোগের সদ্ব্যবহার করেন ভারতীয় এ ওপেনার। খেলেন ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস।

দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষেই অনুমেয় মিরাকল কিছু না ঘটলে ইন্দোর টেস্টে ইনিংস ব্যবধানে হেরে যাবে বাংলাদেশ।

শুক্রবার ৩৭ ও ৪৩ রানে নিয়ে ফের ব্যাটিংয়ে নামেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল ও চেতেশ্বর পুজারা। দ্বিতীয় দিনের শুরুতে এবাদত হোসেনের করা প্রথম ওভারে মাত্র ১ রান সংগ্রহ করে ভারত। ঠিক পরের ওভারেই আবু জায়েদ রাহীর বলে তাণ্ডব শুরু করেন পুজারা। ব্যাক টু ব্যাক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে তুলে নেন ফিফটি। রাহীর পরের ওভারেই বিভ্রান্ত হন তিনি। রাহীর বলে পরিবর্তিত ফিল্ডার সাইফ হাসানের হাতে ক্যাচ তুলে বিদায় নেয়ার আগে ৫৪ রান করেন পুজারা। তার আগে আগারওয়ালের সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেটে গড়েন ৯১ রানের জুটি।

রোহিত শর্মা, পুজারার পর ভারত সেরা ক্রিকেটার বিরাট কোহলিকেও সাজঘরে পাঠান রাহী। তার বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরেন ভারত অধিনায়ক কোহলি।

এরপর আজিঙ্কা রাহানের সঙ্গে জুটি বেঁধে অনব্যদ ব্যাটিং করে যান মায়াঙ্ক। ১৮৩ বল খেলে ক্যারিয়ারের অষ্টম ম্যাচে তৃতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। ইনিংসের শুরু থেকে সাবধানী ব্যাটিং করে যাওয়া রাহানে টেস্ট ক্যারিয়ারের ৬২তম ম্যাচে ২১তম ফিফটি তুলে নেন। অর্ধশতক হাঁকানোর পর আগারওয়ালের মতো সেঞ্চুরির পথেই ছিলেন ভারতীয় টেস্ট দলের সহ-অধিনায়ক রাহানে।

চা পান বিরতির পর খেলায় ফিরেই আবু জায়েদ রাহীর চতুর্থ শিকারে ধরা পরেন রাহানে। তার আগে ৯টি চারের সাহায্যে ৮৬ রান করেন ভারতীয় এ সহ-অধিনায়ক। তার আগে চতুর্থ উইকেটে আগারওয়ালের সঙ্গে গড়েন ১৯০ রানের বিশাল জুটি।

ইনিংসের শুরু থেকে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে যাওয়া মায়াঙ্ক আগারওয়াল অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজের বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ৩০৩ বলে ডাবল সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। ডাবল সেঞ্চুরি পূর্ণ করার পর একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে যাওয়া এই ওপেনারকে রাহীর ক্যাচে পরিনত করেন মিরাজ। তার আগে ৩৩০ বলে ২৮টি চার ও ৮টি ছক্কায় ২৪৩ রান করে ফেরেন মায়াঙ্ক।

সাত নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে সুবিধা করতে পারেননি হৃদ্ধিমান সাহ। ক্যারিয়ারের ৩৬তম টেস্টে ফেরেন মাত্র ১২ রান করে।

দ্বিতীয় দিনের শেষ বিকালে রীতিমতো ব্যাটিং তাণ্ডব চালান রবিন্দ্র জাদেজা ও উমেশ যাদব। টি-টোয়েন্টির স্টাইলে ব্যাটিং করে দিনের খেলা শেষ হওয়া আগে মাত্র ১৯ বল খেলে ৩৯ রান তুলে নেয় এই জুটি। দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে ৬টি চার ও দুই ছক্কায় ৬০ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন ভারতীয় অলরাউন্ডার রবিন্দ্র জাদেজা। এছাড়া মাত্র ১০ বল খেলে ৩ ছক্কা আর একটি চারের সাহায্যে ২৫ রান করে অপরাজিত রয়েছেন উমেশ যাদব।

বাংলাদেশ দলের হয়ে ২৫ ওভারে ১০৮ রান খরচ করে ৪ উইকেট শিকার করেন রাহী। এছাড়া একটি করে উইকেট নেন এবাদত হোসেন ও মেহেদী হাসান মিরাজ।

Print Friendly
User Rating: 0.0 (0 votes)
Sending