ইলিয়াস কাঞ্চন সরে দাঁড়ালেন, নিপুণ বিপাকে

দরজায় কড়া নাড়ছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২৪-২৫ মেয়াদের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন। আগামী ১৯ এপ্রিল নির্বাচনী মাঠে মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন শিল্পীরা। গুঞ্জন উঠেছে, সমিতির বতর্মান সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চন আসন্ন নির্বাচনে অংশ নেবেন না। আর তাই তার প্যানেলের সাধারণ সম্পাদক নিপুণ আক্তার খুঁজছেন নতুন সভাপতি।

বিষয়টি নিয়ে নিপুণ গণমাধ্যমকে বলেন, নির্বাচন আসতে এখনো অনেক সময় বাকি। এখনই চূড়ান্ত কিছু বলা যাবে না। তবে হ্যাঁ, যা শুনছেন তা সত্য। ইলিয়াস কাঞ্চন ভাই এবার নির্বাচন করবেন না। ইলিয়াস কাঞ্চন ভাইদের মতো গুণী শিল্পীরা আসলে নির্বাচনে আসতে চান না। গতবার আমরাই তাকে অনুরোধ করে নির্বাচনে এনেছি। এবারের নির্বাচন নিয়ে যখন কথা উঠেছে তখন কাঞ্চন ভাই নিজেই বলেছেন, তিনি নির্বাচন করবেন না।

নিপুণ আরও বলেন, বিষয়টি নিয়ে এখনই কথা বলতে চাই না। আগামী মার্চে আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে প্যানেল নিয়ে কথা বলব। এখন আমরা সমিতির বনভোজন নিয়ে ব্যস্ত আছি।

এদিকে কিছুদিন আগে শোনা যাচ্ছিল ডিপজল-রুবেল মিলে হচ্ছে এক প্যানেল। তবে এবার জানা গেল নতুন খবর। আসন্ন নির্বাচনে একজোট হয়েছেন মিশা সওদাগর ও ডিপজল। আসন্ন নির্বাচনে একই প্যানেল থেকে প্রার্থী হচ্ছেন তারা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন খল অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল নিজেই।

ডিপজল বলেন, প্যানেল নিয়ে এখনও কথা চলছে। তবে কিছুই চূড়ান্ত হয়নি। মিশা যদি সভাপতি প্রার্থী হতে চান আমার কোনো আপত্তি নেই, আবার আমিও যদি সভাপতি হই এতে তার কোনো আপত্তি নেই। এখন দেখা যাক, কে কোন প্রার্থী হই।

অভিনেতা ডিপজলের প্যানেল থেকে নির্বাচন করার বিষয়ে পরিষ্কার করে কিছুই বলেননি মিশা সওদাগর। তিনি বলেন, ডিপজল ভাইয়ের সঙ্গে প্রাথমিক আলাপ হয়েছে। এখনই কিছু বলতে চাচ্ছিনা। তবে আশাকরি ভালো কিছুই হবে।

প্রসঙ্গত, এরই মধ্যে আসন্ন নির্বাচনের প্রধান কমিশনার ও আপিল বিভাগ চূড়ান্ত হয়েছে। এবারের নির্বাচনে প্রধান কমিশনার হিসেবে থাকছেন খোরশেদ আলম খসরু। তিন সদস্যর এই বোর্ডে অন্য দুই সদস্য হলেন এ জে রানা ও মোহাম্মদ নিশাদ। আপিল বিভাগে প্রধান হিসেবে রয়েছেন শামসুল আলম। তার সঙ্গে সহযোগী হিসেবে রয়েছেন ক্যামেরাম্যান এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মজনু ও নির্মাতা সেলিম আজম।

Print Friendly

Related Posts