২১ আগস্টে বিএসএমএমইউ নিউরোসার্জারি বিভাগের চিকিৎসা স্মৃতি

অধ্যাপক ডা. হারাধন দেবনাথ

২০০৪ সালের ২১ আগস্টে আমি বিএসএমএমইউ নিউরোসার্জারি বিভাগের ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র। সেই সময় আমি বঙ্গবন্ধু শেখ বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্ট্রাল লাইব্রেরিতে এমএস ফাইনাল পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য পড়াশুনা করছিলাম। আমার গাইড ও শিক্ষক অধ্যাপক কনক বড়ুয়ার অধীনে আমি নিউরোসর্জারির ট্রেইনিং করছিলাম। সে সময় টিভির সংবাদ শুনে, সহপাঠীদের কাছে অবগত হই যে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের জনসভায় গ্রেনেড হামলা হয়েছে।

এই হামলায় আওয়ামী লীগের ২৪ জন নেতা-কর্মী নিহত হন। তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রীসহ অনেক নেতাকর্মী মারাত্মকভাবে আহত হন। আমাদের কাছে স্পষ্ট হয় যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে হত্যার জন্য এই গ্রেনেড হামলা করা হয়েছে। আমরা কিংকর্তব্যবিমুঢ় হয়ে যাই।

এই সময় আমাদের প্রিয় শিক্ষক অধ্যাপক কনক কান্তি বড়ুয়ার নির্দেশে আমরা নিউরোসার্জারি বিভাগের প্রধান অপারেশন থিয়েটার খুলে দেই। তখন নিউরোসার্জারি বিভাগের ইমারজেন্সি ছিল বর্তমান বর্হিবিভাগে এবং সেটা টিন সেডের। সেখানে এত মারাত্মক আহত রোগীদের পর্যাপ্ত চিকিৎসার ব্যবস্থা ছিল না। আমরা মেইন অপারেশন থিয়েটার খুলে দিয়ে বহু আহত মানুষের চিকিৎসা দেই।

কেউ মারাত্মক আহত ছিলেন, কারো মাথায় ছিল গ্রেনেডের স্প্লিন্টার, শরীরের বিভিন্ন অংশে ছিল গুলি ও স্প্লিন্টার। কোন কোন রোগীর কিছু গুলি ও স্প্লিন্টার আমরা বের করি। কিন্তু সবক্ষেত্রে গুলি ও স্প্লিন্টার বের করা সম্ভব হয়নি। আমরা যথাসম্ভব চিকিৎসা দেই। যেসব রোগীর ভর্তি লাগে, তাদের ভর্তির ব্যবস্থা করি। সেই সময় হাসাপাতালের বিভিন্ন স্তরের চিকিৎসক, নার্স ও কর্মচারীগণ যথাসাধ্য সহযোগিতা করেন।

আগস্ট মাস আমাদের শোকের মাস। এইদিনে আমরা জাতির পিতাসহ তার পরিবারের সদস্যদের হারিয়েছি। দুষ্কৃতিকারীরা ২১ আগস্টে আরও একটি ‌১৫ আগস্ট সৃষ্টি করতে চেয়েছিল। সৃষ্টি কর্তার অশেষ কৃপায় ঐদিন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখহাসিনা মারাত্মক আহত হয়েও বেঁচে যান। আমরা হারাই আওয়ামীলীগ নেত্রী আইভি রহমনসহ ২৪ নেতাকর্মীকে। গুরুতর আহত হন অনেক নেতাকর্মী।

আমরা খুনিদের বিচারের রায় দ্রত কার্যকর করার দাবী জানাচ্ছি এবং যারা ঐদিন নিহত হয়েছেন তাদের জন্য সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করছি। ভবিষৎতে এই রকম নৃশংস হত্যাকান্ড যাতে না ঘটতে পারে সেই জন্য মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষ শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহব্বান জানাচ্ছি।

অধ্যাপক ডা. হারাধন দেবনাথ: নিউরোসার্জারী বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।
[email protected]

Print Friendly

Related Posts